Twitter

Follow palashbiswaskl on Twitter

Sunday, September 29, 2013

মুনমুন সেনের কি টাকা কম পড়িয়াছে? मुंबई का बाबू देखी है जिसमें बहन बनी सुचित्रासेन देवानंद की और सबसे रोमांटिक दुगाना है फिर आंधी तो देखी होगी आपने जिसमें एकदम इंदिरा लगती है सुचित्रा सेन इसीलिए कमलेश्वर की उस फिल्म पर रोक लगी थी उनदिनों

মুনমুন সেনের কি টাকা কম পড়িয়াছে?

मुंबई का बाबू देखी है

जिसमें बहन बनी सुचित्रासेन

देवानंद की और सबसे रोमांटिक दुगाना है

फिर आंधी तो देखी होगी आपने

जिसमें एकदम इंदिरा लगती है सुचित्रा सेन

इसीलिए कमलेश्वर की उस फिल्म पर

रोक लगी थी उनदिनों


পলাশ বিশ্বাস

No higher resolution available.

Suchitra_Sen_as_Paro_in_Bimpal_Roy's,_Devdas_(1955).jpg ‎(500 × 373 pixels, file size: 45 KB, MIME type: image/jpeg)


মুনমুন সেনের কি টাকা কম পড়িয়াছে?

শেষবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনকে বোধ হয় উত্তম কূমারের মৃত্যুসন্ধ্যায় দেখা গিয়াছে,বলা হয় ভিড় কমলে অবগুন্ঠনবতী বাংলার মানসসুন্দরী

নিজের নায়কের সান্নিধ্যে এসেছিলেন শেষ দর্শনে

তার পর সুদীর্ঘ তিন দশক যাবত বাঙালি শত চেষ্টাতেও

সুচিত্রাসেনের মুখ দর্শন সৌভাগ্যে বন্চিত

তাঁর কোনো ব্যক্তিগত ছবি এ যাবত

প্রকাশিত কারা অনুমতি কাঊকে দেওয়া হয় নি


বাঙালি তাঁর ব্যক্তিজীবনের গোপনীয়তা কে সম্মান করে এসেছে

যদিও বিন্দুমাত্র আকর্ষণ কম হয়নি তাঁর


অন্তরালবাসিনী হইয়াও

বাঙালি তাঁকে হ্রত্কমলে

আঁকড়ে বাঁচতে শিখেছে


এমনকি দেশ তাঁকে সর্বোচ্চ

দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কার দিতে চাইলেও

নিজল্বতার স্বকীয় মহিমায়

সুটিত্রা সেন তা প্রত্যাখান করেছেন


প্রচারের আলো, সম্মান, পুরস্কারের

উর্দ্ধে তিনি এখনো ভারতের

নিয়ম নিষ্ঠ নাগরিক


নিয়মিত ভোট দিতে যান


অসুস্থ হলে তাঁকে হাসপাতালেও যোতে হয়


তিনি কখনো কখনো

বেলুড় মঠেও যান


চিত্রলেখার মতো

বাস্তবে সন্যাসিনী


আমার সহকর্মী সুমিত গুহ

কিছুদিন পূর্বে

তাঁর একটি ছবি

ফেসবুকে দিয়েছিলেন


পুরোনো ছবির সঙ্গে

তাঁর নুতন ছবি

ত্রিশ বছর আগের ও

পরের ছবি


আমরা মীডিয়ার সঙ্গে

যারা যুক্ত

তাঁরা সবরকম ছবিই

পোস্ট করতে জানি


ফেসবুকে বাঙালির

প্রবল আপত্তিতে সেই ছবি

পরদিনই তুলতে তিনি বাধ্য হন


সুচিত্রা সেন হিন্দী ছবি খূব বেশী করেননি

কিন্তু যেকটি ছবি হিন্দীতে তিনি করেছেন

সব কটিই ভারতীয় চলচ্চিত্রের উজ্জ্বন ইতিহাস


দেবদাসের পার্বতী বললেই সুচিত্রা সেন

আঁধিতে ইন্দিরার চরিত্রায়ণেও তিনি


দেবানন্দের সঙ্গে তাঁর জুটি

রোমান্টিকতার চরমোত্কর্ষ

আজও ভারতীয জণগণ সেই দৃশ্যগুলিতে

টাইম মেশিনে বসতে অভ্যস্ত


অথছ কেউ এ যাবত

জানতই না যে

তাঁর নগ্ন পিঠে চুমু খেয়েছেন ধর্মেন্দ্র

তাঁর সিনেমার বাইরের

অপ্রকাশিত অন্তরঙ্গ ছবি প্রাকাশের অনুমতি

একমাত্র মুনমুন সেনই দিতে পারেন,জানি

তাই বাণিজ্যিক স্বার্থে

সুচিত্রাসেনের ছবির

অপব্যবহারে বাঙ্গালি

বিচলিত হল না কেন,আশ্চর্য্য


মুনমুন সেনের কি টাকা কম পড়িয়াছে?


তবে বাণিজ্যিক যদি না হয়

এই গোপনীয়তা ভঙ্গের আয়োজন

তাহলে অন্য সবাইও আসুন

আমাদের ভান্ডারে যার যা যা আছে

অন্ততঃ ফেসবুকে পোস্ট করি!


मुंबई का बाबू देखी है

जिसमें बहन बनी सुचित्रासेन

देवानंद की और सबसे रोमांटिक दुगाना है

फिर आंधी तो देखी होगी आपने

जिसमें एकदम इंदिरा लगती है सुचित्रा सेन

इसीलिए कमलेश्वर की उस फिल्म पर

रोक लगी थी उनदिनों


बंगाल में आज भी महानायिका हैं सुचित्रासेन

और कोई भी नहीं

उत्तम कुमार के साथ उनकी जोड़ी

भारतीय सिनेमा की सर्वश्रेष्ठ सर्वकालीन जोड़ी

उसी उत्तम कुमार के निधन के बाद

आखिरी बार देखी गयी सुचित्रा सेन


अस्पताल,मतदान केंद्र या बेलुड़ मठ

जहां भी जाती हैं सुचित्रा सेन

किसी को तस्वीर खींचने की

कोई इजाजत है ही नहीं



हमारे सहकर्मी सुमित गुह ने

पिछले दिनों फेसबुक वाल पर

उनकी दो तस्वीरें लगा दीं

एक तीस साल पहले की

तो दूसरी अद्यतन


फौरन सेन परिवार से हो गया एतराज

फेसबुक पर भी लोग हो गये नाराज

ऐसा उनकी निजता का सम्मान


उसके तुरंत बाद

भारत में सर्वाधिक प्रसारित

एकल संस्करणवाले

बांग्ला लोकप्रिय दैनिक ने

वीकेंड संस्करण में छाप दिये

पूरे चार पन्नों पर

सुचित्रा सेन के

तमाम अंतरंग गैरफिल्मी क्षण

कहीं प्ता भी नहीं खड़का

किसी ने नहीं किया विरोध


हम सारे लोग अपनी अपनी

निजता के ऐसे ही पहरेदार हैं

कोई स्टिंग से परेशान

कोई ताकझांक से परेशान

कोई परेशान फोन टैपिंग से

निजता के लिए आत्महत्या

बहुत आम है इस देश में

निजता के लिए ही आनर किलिंग


लेकिन उस निजता पर

हो रहे सबसे बड़े हमले पर खामोश हैं हम

गैरकानूनी तरीके से रोके जाते वेतन

निलंबित नागरिक सेवाएं

संसद में मंत्री कहते

कोई जरुरी नहीं है आधार कार्ड

इधर हर सेवा के लिए हर कोई

मांग रहा है आधार कार्ड

बिन आधारकार्ड

अपने ही देश में लोग

विदेशी हो गये हैं अब


সুচিত্রা সেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

সুচিত্রা সেন


*

দেবদাস ছবিতে সুচিত্রা সেন (১৯৫৫)


দম্পতি

দিবানাথ সেন

স্বাক্ষর

*

সুচিত্রা সেন (এপ্রিল ৬ ১৯২৯) অথবা এপ্রিল ৬, ১৯৩১[১] ভারত তথা পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম বিখ্যাত অভিনেত্রী । বিশেষ করে উত্তম কুমারের সাথে অভিনয়ের কারনে তিনি সারা বাংলায় প্রচন্ড জনপ্রিয় হন। উত্তম-সুচিত্রা জুটি আজও বাংলা চলচ্চিত্রের শ্রেষ্ঠ জুটি হিসেবে পরিগনিত। বর্তমানে তিনি নিভৃত জীবনযাপন করেন। যখন তিনি অভিনয় ছেড়ে দিয়েছিলেন সে পর্যায়ে তিনি ধীরে ধীরে সেরা নায়িকার অবস্থান হারাচ্ছিলেন বলে কথিত আছে।

তিনিই প্রথম ভারতীয় অভিনেত্রী যিনি কোন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কার পান (শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার - সাত পাকে বাঁধা ১৯৬৩ ছবির জন্য, মস্কো চলচ্চিত্র উৎসব)।

পরিচ্ছেদসমূহ

 [আড়ালে রাখো]

চলচ্চিত্র জীবন[সম্পাদনা]

১৯৫২ সালে শেষ কোথায় ছবির মাধ্যমে তার চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু হয় কিন্তু ছবিটি মুক্তি পায়নি।

পরবর্তী বছরে উত্তম কুমারের বিপরীতে সাড়ে চুয়াত্তর ছবিতে তিনি অভিনয় করেন। ছবিটি বক্স-অফিসে সাফল্য লাভ করে এবং উত্তম-সুচিত্রা জুটি উপহারের কারনে আজও স্মরনীয় হয়ে আছে। বাংলা ছবির এই অবিসংবাদিত জুটি পরবর্তী ২০ বছরে ছিলেন আইকন স্বরূপ।

১৯৫৫ সালের দেবদাস ছবির জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতেন, যা ছিল তার প্রথম হিন্দি ছবি। উত্তম কুমারের সাথে বাংলা ছবিতে রোমান্টিকতা সৃষ্টি করার জন্য তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বিখ্যাত অভিনেত্রী। ১৯৬০ ও ১৯৭০ দশকে তার অভিনীত ছবি মুক্তি পেয়েছে। স্বামী মারা যাওয়ার পরও তিনি অভিনয় চালিয়ে গেছেন, যেমন হিন্দি ছবি আন্ধি। এই চলচ্চিত্রে তিনি একজন নেত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। বলা হয় যে চরিত্রটির প্রেরণা এসেছে ইন্দিরা গান্ধী থেকে। এই ছবির জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছিলেন এবং তার স্বামী চরিত্রে অভিনয় করা সঞ্জীব কুমার শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার জিতেছিলেন।

১৯৭৮ সালে সুদীর্ঘ ২৫ বছর অভিনয়ের পর তিনি চলচ্চিত্র থেকে অবসরগ্রহণ করেন। এর পর তিনি লোকচক্ষু থেকে আত্মগোপন করেন এবং রামকৃষ্ণ মিশনের সেবায় ব্রতী হন। [১] ২০০৫ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারের জন্য সুচিত্রা সেন মনোনীত হন, কিন্তু ভারতের প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে সশরীরে পুরস্কার নিতে দিল্লী যাওয়ায় আপত্তি জানানোর কারনে তাকে পুরস্কার দেয়া হয় নি।

তার মেয়ে মুনমুন সেন এবং নাতনী রিয়া সেনরাইমা সেন ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

উত্তম কুমারের সাথে অভিনয়[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ

Suchitra Sen

From Wikipedia, the free encyclopedia

Suchitra Sen


*

Suchitra Sen as Paro in Bimal Roy's Devdas(1955)


Born

Rama Dasgupta

April 6, 1931 (age 82)

Pabna, Bengal Presidency, British India

(now in Bangladesh)

Nationality

Indian

Other names

Rama

Ethnicity

Bengali Hindu

Years active

1953–1979

Religion

Hinduism

Spouse(s)

Dibanath Sen

Awards

1963-Best Actress for Saptapadi in Moscow film festival

Signature

*

Suchitra Sen (Bengali pronunciation: [ʃuːtʃiːraː ʃeːn]  listen (help·info)) or Rama Dasgupta( listen (help·info)) (born 6 April 1931),[1][2] is an Indian actress[3] who acted in severalBengali films. In particular, the movies in which she paired opposite another legend in Bengali films, Uttam Kumar, became classics in the history of Bengali cinema. She now lives a life of a recluse rarely making any public appearances. When she left movies, she was slowly but steadily losing the position of leading lady of Bengali silver screen.

She is the first Bengali actress to be awarded in an international film festival (Best Actress award for Saat Paake Bandha in the 1963 Moscow film festival). Notably, she allegedly refused the Dadasaheb Phalke Award in 2005, preferring to live in seclusion out of the public eye.[4] In 2012, Sen was conferred with West Bengal government`s highest awardBanga Bibhushan.[5]

Contents

 [hide]

Personal life and education[edit]

Sen was born in Pabna in present day Pabna District of Bangladesh. Her father Karunamoy Dasgupta was the headmaster of the local school and her mother Indira Devi was a homemaker. She was their fifth child and third daughter. She had her formal education in Pabna.

She married Dibanath Sen, son of a wealthy Bengali industrialist, Adinath Sen in 1947[6]and had one daughter, Moon Moon Sen, who is an actress.

Sen made a successful entry after marriage into Bengali films 1952 and then a less successful transition to the Bollywood film industry. According to some unconfirmed but persistent reports in the Bengali press, her marriage was severely strained by her success in the film industry.

Career[edit]

Sen made her debut in films with Shesh Kothaay in 1952, but it was never released.[7] The following year saw her act opposite Uttam Kumar in Sharey Chuattor, a film by Nirmal Dey. It was a box-office hit and remembered for launching Uttam-Suchitra as a leading pair. They went on to become the icons for Bengali dramas for more than 20 years, becoming almost a genre to themselves.

She received a Best Actress Award for the film Devdas (1955), which was her first Hindi movie. Her patented Bengali melodramas and romances, especially with Uttam Kumar, made her the most famous Bengali actress ever. Her films ran through the 1960s and the 1970s. Her husband died, but she continued to act in films, such as the Hindi hit Aandhi (1974), where she played a politician. Aandhiwas inspired by India's Prime Minister Indira Gandhi. Sen received a Filmfare Award nomination as Best Actress, while Sanjeev Kumar, who essayed the role of her husband, won the Filmfare as Best Actor.A point to be noted, her husband,who himself was an industrialist, invested a lot in her success, but later a great deal of rift developed among them.

One of Suchitra's best known performances was in Deep Jwele Jaai (1959). She played Radha, a hospital nurse employed by a progressive psychiatrist, Pahadi Sanyal, who is expected to develop a personal relationship with male patients as part of their therapy. Sanyal diagnoses the hero, Basanta Choudhury, as having an unresolved Oedipal dilemma — the inevitable consequence for men denied a nurturing woman. He orders Radha to play the role though she is hesitant as in a similar case she had fallen in love with the patient. She finally agrees and bears up to Choudhury's violence, impersonates his mother, sings his poetic compositions and in the process falls in love again. In the end, even as she brings about his cure, she suffers a nervous breakdown. The film is full of beautiful, often partly lit, close ups of Sen which set the tone of the film and is aided by a mesmerizing performance by her. Asit Sen remade the film in Hindi as Khamoshi (1969) with Waheeda Rehman in the Suchitra Sen role.)

Suchitra's other landmark film with Asit Sen was Uttar Falguni (1963). Suchitra carries the film single-handedly in the dual role of a courtesan Pannabai and her daughter Suparna, a lawyer. In particular, she is brilliant as Pannabai, bringing much poise, grace and dignity in the role of a fallen woman determined to see her daughter grow up in a good, clean environment. Suchitra as Pannabai is able to connect directly with the viewer and make him or her feel deeply for all that she goes through the course of the film thus giving her death at the end a solid, emotional wallop. Her international success came in the year of 1963, when she won the best actress award in Moscow Film Festival for the movie Saat Paake Bandha. In fact, she is the first female to receive an international film award.

She refused Satyajit Ray's offer due to date problem; as a result Ray never made the film Devi Chaudhurani, a movie based on the erstwhile ruler Her Royal Highness Maharani Joy Durga Devi Chaudhurani of the Manthana Kingdom Estate of Rangpur in Bangladesh, popularly known in history as Devi Chaudhurani. His Royal Highness Rajah Bhupendra Narayan Roy Choudhury was the last ruler of the kingdom, and 'His Royal Highness Prince Rupendra Narayan Anirban Narayan Roy Choudhury of Rangpur' who commonly uses the name Anirban Roy Choudhury is the present titular crown prince of the estate. His She also refused Raj Kapoor's offer for a film under the RK banner. She retired from the screen in 1978 after a career of over 25 years to a life of quiet seclusion. She has avoided the public gaze after her retirement and has devoted her time to the Ramakrishna Mission.[1] Suchitra Sen was a contender for theDadasaheb Phalke Award for the year 2005, provided she was ready to accept it in person. Her refusal to go to New Delhi and personally receive the award from the President of India deprived her of that award.

Selected filmography[edit]

Year

Title

Role

Language

Notes

1952

Shesh Kothay


Bengali

Unreleased

1953

Saat Number Kayedi




1953

Bhagaban Srikrishna Chaitanya

Bishnupriya

Bengali


1953

Sharey Chuattor

Romola

Bengali


1953

Kajori




1954

Sadanander Mela

Sheela

Bengali


1954

Agnipariksha

Bengali



1954

Ora Thaake Odhare




1954

Grihaprabesh


Bengali


1954

Atom Bomb




1954

Dhuli

Minati



1954

Maraner Parey

Tanima

Bengali


1954

Balaygras

Manimala



1954

Annapurnar Mandir


Bengali


1955

Devdas

Parvati (Paro)

Hindi

First Hindi film

1955

Shapmochan

Madhuri

Bengali


1955

Sabar Uparey


Bengali


1955

Snaajhghar




1955

Snaajher Pradeep


Bengali


1955

Mejo Bou


Bengali


1955

Bhalabaasa


Bengali


1956

Sagarika

Sagarika

Bengali


1956

Trijama

Swarupa

Bengali


1956

Amar Bou


Bengali


1956

Shilpi


Bengali


1956

Ekti Raat

Swantana

Bengali


1956

Subharaatri


Bengali


1957

Harano Sur

Dr. Roma Banerjee

Bengali


1957

Pathe Holo Deri

Mallika



1957

Jeeban Trishna




1957

Chandranath

Saraju



1957

Musafir

Shakuntala Verma

Hindi


1957

Champakali


Hindi


1958

Rajlakshmi O Srikanta

Rajlakshmi



1958

Surya Toran

Aunita Chatarjee

Bengali


1958

Indrani

Indrani



1959

Deep Jwele Jaai

Radha

Bengali


1959

Chaaowa Pawoa


Bengali


1960

Hospital

Sarbari



1960

Smriti Tuku Thaak

Shobha

Bengali


1960

Bombai Ka Baboo

Maya

Hindi


1960

Sarhad


Hindi


1961

Saptapadi

Rina Brown

Bengali


1961

Saathihara




1962

Bipasha




1963

Saat Paake Badha

Archana

Bengali


1963

Uttar Fhalguni

Debjani / Pannabai / Suparna

Bengali


1964

Sandhya Deeper Sikha

Jayanti Bannerjee

Bengali


1966

Mamta

Devyani / Pannabai / Suparna

Hindi


1967

Grihadaha

Achala



1969

Kamallata

Kamallata



1970

Megh Kalo

Dr. Nirmalya Roy

Bengali


1971

Fariyaad




1971

Nabaraag




1972

Alo Amaar Alo

Atashi

Bengali


1972

Haar Maana Haar


Bengali


1974

Devi Chaudhurani

Prafullamukhi

Bengali


1974

Srabana Sandhya


Bengali


1975

Priyo Bandhabi


Bengali


1975

Aandhi

Aarti Devi

Hindi


1976

Datta

Bijoya

Bengali


1978

Pranoy Pasha


Bengali


Awards and nominations[edit]

Year

Award

Result

Film

1963

Moscow Film Festival - Best actress award

Won

Saptapadi[8]

1963

Filmfare Best Actress Award

nominated

Mamta

1976

Filmfare Best Actress Award

Nominated

Aandhi

2012

Banga Bibhushan

Won

Lifetime Achievement in Film acting

References[edit]

No comments:

Post a Comment

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Welcome

Website counter

Followers

Blog Archive