Twitter

Follow palashbiswaskl on Twitter

Sunday, March 8, 2015

নমো বুদ্ধা : জয় হরিচাঁদ

নমো বুদ্ধা : জয় হরিচাঁদ

লিখছেনঃ 

নমো বুদ্ধা :  জয় হরিচাঁদ


গোতমা বুদ্ধ এবং হরিচাঁদ ভারতীয় সূক্ষ্ম সনাতন ধম্ম দেশনার দুই যুগ পুরুষ। একজনের জন্ম হয়েছিল আজথেকে ২৫৫৯ বছর আগে। আর এক জন জন্মে ছিলেন ২০৩ বছর আগে ইংরেজী ১৮১২ সালের ১১ই মার্চ। দুজনের আবির্ভাবের মধ্যে পার্থক্য ২৩৫৬ বছর। কিন্তু অদ্ভুত ভাবে দুজনের চরিত্রে রয়েছে একই দৃঢ়তা, একই বিভঙ্গ, একই দীপ্তি। ধম্ম দেশনার জন্য দুজনেই বেছে নিয়েছিলেন বোধি বৃক্ষ (Tree of wisdom)। গোতমা উদ্ঘাটন করেছিলে দুঃখের কারণ, দেখিয়েছিলেন দুঃখকে জয় করার প্রকৃত পথ, পঞ্চ শীল এবং অষ্টাঙ্গিক মার্গ। হরিচাঁদ দিয়েছিলেন দ্বাদশ আজ্ঞা। অবজ্ঞার গ্লানি ও ব্যাথায় জর্জরিত বঞ্চিত, নিপীড়িতদের স্বশক্তিকরণের মূল মন্ত্র শিখিয়েছিলেন হরিচাঁদ।



আমি এই দুই মহা মানবের ধম্ম দেশনার কয়েকটি বাণী (বিনয়া পিটক ও হরি লীলামৃত থেকে)  এখানে তুলনামূলক ভাবে নিবেদন করছি। এতে বোঝা যাবে যে এই বিচারধারাই ভারতবর্ষের মূলবিচার ধারা। এটাই প্রকৃত  ধম্মসনাতনের আদর্শ মার্গ।


পৃথিবীতে সর্বপ্রথম ধম্মসনাতনের বাণী ব্যাখ্যা করেন গোতমা। তিনি বলেছিলেঃ
ক) " নাহি বেরানা বেরানি সম্মন্তিধ কুদাচনং
অবেরেনা চ সম্মন্তি এস ধম্ম সনাতন" ।আত্তদন্ড সূত্ত
এর ইংরেজিটা এরকম, " "Dhamma as I understand it consists in recognizing that enmity does not disappear by enmity. It can be conquered by love only"
হরিচাঁদ বললেনঃ
জীবে দয়া নামে রুচি মানুষেতে নিষ্ঠা।
ইহা ছাড়া আর যত সব ক্রিয়া ভ্রষ্টা।।
এই সূক্ষ্ম সনাতন ধর্ম জানাইতে।
জনম লভিলা যশোমন্তের গৃহেতে।।
খ) গোতমা বললেনঃ         
"Non-association with fools,
And association with wise men,
Worship of respect worthy persons,
This is the highest blessing"।

হরিচাঁদ বললেনঃ
শুনেছি সাধুর মুখে কহে পরস্পর
অধর ধরিবি যে ধরেছে তারে ধর।।  অথবা
অসতের সঙ্গ ছাড়ি হরি হরি বল।
কুফল বিফল হবে পাবে প্রেম ফল।।

গ) "Great learning and skill at work,
And well-practiced moral observances,
Words which are well spoken,
This is the highest blessing.
সংসারে সংসারী থাক তাতে ক্ষতি নাই।
চরিত্র পবিত্র রাখি সত্য বলা চাই।।
গৃহ ধর্ম রক্ষা কর বাক্য সত্য কও।
হাতে কাম মুখে নাম দেল- খোলা হও।।
ঘ) "Taking care of father and mother,
Caring for wife and children,
And acting without confusion,
This is the highest blessing
  
Those who act in this way
Are undefeated in all circumstance
And attain happiness everywhere,
These are the highest blessings.
পুরুষে করিবে ভক্তি পিতা মাতা ভাই।
নারী পক্ষে পতি ভিন্ন অন্য গতি নাই।
পরপতি পর সতী স্পর্শ না করিবে।
না ডাক হরিকে হরি তোমাকে ডাকিবে।।
গৃহ ধর্ম রক্ষা কর বাক্য সত্য কয়।
যোগী, ন্যাসী কি সন্ন্যাসী কেহ তুল্য নয়।।
গৃহেতে থাকিয়া যার হয় ভাবোদয়।
সেই যে পরম সাধু জানিও নিশ্চয়।।    

স্বজাতিকে এই দুই মহামানবের ধম্ম দেশনার গুঢ়ার্থ বোঝাতে গুরুচাঁদ ব্রাহ্মন্য তন্ত্রের অবতার তত্ত্বের স্বরূপ উদ্ঘাটন করে যথার্থই বলেছিলেনঃ

শ্রীকৃষ্ণ, গৌরাঙ্গ আদি যত অবতার ।
অন্য অন্য সম্প্রদায় করিল উদ্ধার।।
সরল কৃষক কুল সবে অবনত।
কোন অবতার নাহি করে দৃষ্টি পাত।।
আর এক যুক্তি উঠে মনের ভিতর।
যার জাতি তার সাথি আর সব পর।।
ব্রাহ্মণাদি উচ্চ বর্ণে অবতার হয়।
যার যার ঘর সারি পরে ফাঁকি দেয়।। (গুরু চাঁদ চরিত)    
মহামান্য গুরুচাঁদের এই ধম্ম দেশনাকে পরিষ্কার বুঝে নিয়ে আমাদের গোতমা বুদ্ধ এবং হরিচাঁদের মত ও পথকে শিরোধার্য করে এগিয়ে যেতে হবে। তবেই প্রাচ্য আবার জ্ঞান বিজ্ঞান ও দর্শনে শ্রেষ্ঠ আসনে ভূষিত হবে।
নমো বুদ্ধায়, জয় হরিচাঁদ   

No comments:

Post a Comment

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Welcome

Website counter

Followers

Blog Archive